কুড়িগ্রাম  মেম্বার  পদ প্রার্থী প্রচার প্রচারণায় এগিয়ে মোঃ রমজান মোল্লা।  

কুড়িগ্রাম  মেম্বার  পদ প্রার্থী প্রচার প্রচারণায় এগিয়ে মোঃ রমজান মোল্লা।  

মোঃ মামুন হোসেন রৌমারী (কুড়িগ্রাম) থেকে: আসন্ন  ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। সময় যতই ঘনিয়ে আসছে ততই গরম হয়ে উঠছে রাজনীতির মাঠ। সকাল হতে শুরু করে গভীর রাত পর্যন্ত পথে ঘাটে চায়ের দোকানে চলছে নির্বাচনের প্রচার প্রচারণা। আসন্ন ২ নং নয়ার হাট ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের মেম্বার  পদপ্রার্থী হিসেবে আলোচনায় আছেন  কুড়িগ্রাম  জেলার চিলমারী উপজেলার  ২নং  নয়ার হাট  ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের গয়নার পটল গ্রামের কৃতি সন্তান বিশিষ্ট সমাজসেবক ও পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ মোঃরমজান মোল্লা ।

সূত্র জানায়, মাঠি ও মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায় কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। তাকে ঘিরেই সর্বত্র চলছে আলোচনা। এলাকার লোকজনের চাওয়া ও আকাঙ্ক্ষার প্রতিফলন ঘটাতেই আগামী ইউপি নির্বাচনে মেম্বার পদে লড়ছেন রাজপথের লড়াকু সৈনিক ও তরুন প্রজন্মসহ সর্বমহলে ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জনকারী এই নেতা। ধারক-বাহক এ নেতা প্রার্থী হওয়ায় এলাকাবাসি জোটবদ্ধ হয়ে তার পক্ষে মাঠে কাজ করবে বলে মনে করেন অনেকে।

আসন্ন ইউপি নির্বাচনের প্রস্তুতি সর্ব। দলীয় নেতা-কর্মিরাও চাঙ্গা হয়ে উঠছেন। অনেকেই আগাম প্রচার-প্রচারনায় নেমেছেন। প্রার্থী  হিসেবে আলোচনা ও জনপ্রিয়তায় এগিয়ে আছেন মোঃরমজান মোল্লা । এলাকাবাসির সাথে কথা বলে জানা গেছে, রমজান মোল্লা ব্যাপক জনপ্রিয়তা রয়েছে। ছাত্র ও যুব সমাজের মাঝেও রয়েছে তার ব্যাপক গ্রহণযোগ্যতা। দীর্ঘদিন রাজপথে  থাকা এ নেতাকে মেম্বার হিসেবে চান দলমত নির্বিশেষে অনেকেই।

এই প্রার্থী মোঃ  রমজান মোল্লা ইউনিয়নের প্রতিটি এলাকার মাদক, সন্ত্রাস, জুয়া, বাল্যবিবাহ ও বিভিন্ন অনৈতিক কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে আন্দোলন সংগ্রামে অগ্রভাগে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন। ওয়ার্ডের একাধিক ব্যক্তি জানান, রমজান মোল্লা। তরুন-প্রজন্মের জনপ্রিয় নেতা। সব সময় তাকে মাঠে পাওয়া যায়। বিপদে-আপদে এমনকি মহামারী করোনা-কালীন সময়ে তার অনেক অবদান রয়েছে।

 

মোঃরমজান মোল্লা বলেন, আমি এই ওয়ার্ডে  নির্বাচিত হলে, এলাকাবাসীকে পরিছন্ন এক ডিজিটাল  ওয়ার্ড উপহার দেবো। বেকারত্ব সমস্যা সমাধান, বাল্যবিবাহ বন্ধ, মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত শিক্ষাবান্ধব উন্নত নাগরিক সুবিধা প্রদান করবো। পিছিয়ে থাকা রাস্তাঘাট সংস্কারে উদ্যোগ গ্রহণ করবো। মহামারী করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ও সংক্রমণ মোকাবিলায় আমি এলাকায় কাজ করেছি। আমি যতটুকু পেরেছি আমার এলাকাবাসীকে সাহায্য ও সহযোগিতা করেছি।

তিনি আরো বলেন, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে প্রতিনিয়ত জনসচেতনতায় কাজ করেছি। আমি ব্যক্তিগতভাবে বেশ কিছু পরিবারকে ত্রাণ সহায়তা দিয়েছি। সাধ্যমতো মানুষের সাহায্য ও সহযোগিতা করে থাকি। মহান আল্লাহ চাইলে আর ওয়ার্ড বাসী সমর্থন দিয়ে পাশে থাকলে গরীব, দুঃখী, অসহায়, মেহনতী মানুষের অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করবো ইনশাআল্লাহ।