বাংলাদেশে ঢুকতে দেয়া হবে না মোদিকে : আল্লামা বাবুনগরী

হেফাজতে ইসলামের আমীর আল্লামা জুনাইদ আহমদ বাবুনগরী বলেন, ইসলামের বিরোধিতাকারীরা কখনও টিকে থাকতে পারেনি। নমরুদ, ফেরাউন ইসলামের বিরোধিতা করে উৎখাত হয়েছে, ইসলামের দুশমন আবু জাহেল নবীজীর বিরোধিতা করে টিকতে পারে নাই, আবু জাহেলের খালাতো ভাই ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রো নবীজীকে নিয়ে ব্যঙ্গ করেছেন, ভারতের কসাই মোদি মুসলমানদের গাজরের মতো কেটে কেটে হত্যা করেছেন। তারাও টিকতে পারবেন না।

তিনি বলেন, কসাই মোদিকে বাংলাদেশে ঢুকতে দেয়া হবে না। যারা নবীর নামে কুৎসা রটনা করে বিরুদ্ধাচরণ করে তাদের বিরুদ্ধে সংসদে আইন পাসের মধ্য দিয়ে শাস্তির বিধান রাখতে হবে।

সোমবার সুনামগঞ্জের দিরাই পৌর শহরের স্টেডিয়াম মাঠে হেফাজতে ইসলাম আয়োজিত শানে রিসালাত সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী এসব কথা বলেন। হেফাজতে ইসলাম দিরাই উপজেলার শাখার আয়োজনে শানে রিসালাত সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

তিনি বলেন, হেফাজতের আন্দোলন ক্ষমতার জন্য নয়, বাংলার মাটিতে নবীজীর সম্মান রক্ষার আন্দোলন চালিয়ে যাবে, প্রয়োজনে রক্ত ঝরাবে।

সকাল থেকেই পৌরশহরের অলি গলি ও বিভিন্ন রাস্তায় তৌহিদী জনতার ঢল নামে, সম্মেলন স্থল জনসমুদ্রে পরিণত হয়।

শানে রিসালাত সম্মেলনে যোগ দিতে হেলিকপ্টার যোগে দুপুর ১টায় মজলিশপুরস্থ হ্যালিপ্যাডে অবতরণ করে সমাবেশস্থলে পাশে হাফিজিয়া হুসাইনিয়া মাদ্রাসায় পৌঁছেন হেফাজতে ইসলামের আমীর আল্লামা জুনাইদ আহমদ বাবনগরী।

এ সময় হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় কমিটির নায়েবে আমীর নুরুল ইসলাম খান, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব জুনাইদ আল-হাবিব, যুগ্ম মহাসচিব আল্লামা মামুনুল হক, যুগ্ম মহাসচিব নাছির উদ্দিন মুনিরসহ হেফাজতের কেন্দ্রীয় নেতারা। বিকাল ৩টায় সমাবেশস্থলে পৌঁছেন হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় নেতারা।

হযরত মাওলানা শেখ আজিজুর রহমানের সভাপতিত্বে এবং সিনিয়র সহ সভাপতি মাওলানা নুর উদ্দিন আহমদ ও সাধারণ সম্পাদক মুক্তার হোসেন যৌথ পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য যুগ্ম মহাসচিব আল্লামা মামুনুল হক বলেন, নবীজীর দুষমন, নবীজিকে নিয়ে কুটুক্তিকারীদের মৃত্যুদণ্ডের বিধান পাশ করতে হবে। এ দাবি আদায়ে প্রয়োজনে নবী প্রেমিকরা রক্ত ঝরাবে।

নবীর দুশমন ও কটূক্তিকারী আমাদের জানের দুশমন উল্লেখ করে তিনি বলেন, নবীজীর দুশমনদের খতম করা হবে ঈমান। আমাদের কথা স্পষ্ট মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা আদালত ও শাসক দলের, মুসলিম দেশ হিসেবে যদি তা না করা হয় তাহলে রাষ্ট্র ব্যর্থতার পরিচয় দেবে। দাবি একটাই মৃত্যুদণ্ডের আইন পাস করতে হবে।

সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন- সাবেক এমপি মাওলানা শাহিনুর পাশা চৌধুরী, মাওলানা সোয়েব আহমদ, মুফতি সফিকুল আহাদ প্রমুখ।