৪র্থ স্ত্রীর মামলায় নক্সেবন্দী গ্রেফতার,এইটা একটা অপ্রচার

সত্যকে জানুন পাশে থাকতে না পারেন তবে বিপদের সময় অপপ্রচার বন্ধ করুন

বক্তা হাসানুর রহমান হোসাইন নক্সেবন্দির গালিগালাজ সমৃদ্ধ বক্তব্য চরম ভাবে অপছন্দ করি।

গতকালের পর থেকে সোস্যাল মিডিয়ায় একটা নিউজ প্রচন্ড রকমের ভাইরাল হয়েছে, নিউজটি হল ৪র্থ স্ত্রীর মামলায় গ্রেফতার নক্সেবন্দী সাথে ৫ম স্ত্রী ছিলো। যেহেতু তার পারিবারিক কিছু বিষয় আমার জানা সুতরাং একটা মানুষের নামে এমন জগন্য অপবাদ এবং মিথ্যা কথা শোনার পর চুপ থাকা সমিচীন নয় বলে এই লেখা।

বর্তমানে তিনি পারিবারিক একটি মামলায় আটক হয়েছেন। আর তা হলো গত বছর তার একমাত্র স্ত্রীর সাথে ডিভোর্স হয়েছে যে সংসারে তার একজন কন্য সন্তান ও আছে। ডিভোর্স হওয়ার পরের জুমায় কমলাপুর মসজিদে আলোচনা কালীন সময়ে তিনি প্রচুর কেদেছেন এবং মেয়েটির জন্যও কেদেছেন যে ভিডিও টা এখনো মিম টিভি বাংলায় আছে।

তো সেই স্ত্রীর দায়ের করা মামলায় ই হাসানুর রহমান হোসাইন নক্সেবন্দি আজ গ্রেফতার।

ডিভোর্সের পর এখন পর্যন্ত তিনি ২য় বিয়ে পর্যন্ত ও করেন নি।অথচ এদেশের অতি উৎসাহী হিংসুক কিছু মিডিয়া এবং সোস্যাল মিডিয়ার কিছি অতি উৎসাহী ভাইয়েরা প্রচারণা চালাচ্ছে এই ঘৃণ্য শিরোনাম টি।

যারা বক্তা নক্সেবন্দির ব্যাপারে এই মিথ্যা গুজব টি ছড়াচ্ছেন তাদের জন্য বলছি দেখুন তার বক্তব্য আমরা পছন্দ করি না বলে কি তার পারিবারিক দূর্বলতা কে এভাবে মিথ্যার সাথে মিলিয়ে জগন্য ভাবে প্রচার করতে হবে?
যে লোক ২য় বিবাহ ই করল না অথচ তার ৩য়, ৪র্থ ও ৫ম স্ত্রী পর্যন্ত বানিয়ে ফেলা কি খুব ভালো কাজ?
আমরা কি মন্দের প্রতিবাদ মন্দ দিয়েই করব?

পরিশেষে বলব, আসুন মন্দের প্রতিবাদ ভালো দিয়ে করি এটাই রাসুলের আদর্শ।

কিন্তু তাই বলে তার এই অসহায়ত্বের সময়ে এই সত্যটুকু জাতীকে জানানো আমার কর্তব্য মনে করে এই পোস্ট করা।
এখন আমাকে কে কি ফতোয়া দিবেন তা ওয়াল্লাহু আ’লাম।
সবাই বেশি বেশি শেয়ার করুন

প্রচারে হামিদুল ইসলাম হেলালী