আল্লাহ যখন আমাদের ভালো কিছু দেন -আমরা চাই আরও ভালো কিছু পেতে

সাইদুর রহমান মিন্টু
বিজ্ঞাপন

✍️ ছৈয়দ মোহাম্মদ মোকাররম বারী

আল্লাহ যখন আমাদের ভালো কিছু দেন -আমরা চাই আরও ভালো কিছু পেতে!! যেমন ধরুন আমরা যখন অসুস্থ হয়ে যাই… আল্লাহ আমাদের একটু সুস্থ করে দিলে ;আমরা কি দুয়া করি ? আমরা বলি– ‘আল্লাহ আমাকে পুরোপুরি সুস্থ করে দিন’ !!

আল্লাহ তখন বলেন – দাড়াও তুমি যখন পুরোপুরি সুস্থ ছিলে যখন কোন ধরনের অসুখ-বিসুখ তোমার ছিলনা, তখন তো তুমি আমাকে এত আন্তরিকতার সাথে ডাকোনি… !?? কখনো এত ব্যাকুল হয়ে এমন আমল করনি ….!! এভাবে চোখের পানি ফেলে আমার কাছে কিছু চাওনি. ..!!

তাই আমার পক্ষ থেকে উপহার স্বরূপ এই রোগটি তোমাকে দিলাম, এই সমস্যা দিলাম ,এই বাধা-বিপত্তি দিলাম ,কারণ আমি জানি – আমার কাছে ফিরে আসা,আমার দয়ার অনুভব করার জন্য তোমার এই সমস্যার প্রয়োজন ছিল !!

অর্থাৎ আমাদের জীবনে যে পরীক্ষা গুলো আসে হতে পারে সেগুলো আল্লাহর পক্ষ থেকে উপহার, একটা নিয়ামত ; কারণ ১সপ্তাহ জ্বরে পরে থেকে এমনকি এক বছর অসুখে বিছানায় পড়ে থেকে অথবা প্রিয়জনকে হারানোর ফলে আমরা যদি আল্লাহকে পেয়ে যাই,আল্লাহর স্বরণে নিজেকে মশগুল রাখি, তাহলে তা বাস্তবে শাস্তি নয় বরং তা আল্লাহর পক্ষ থেকে আমাদের জন্য এক বিরাট উপহার।।

কিন্তু অনেক সময়ই আমরা দেখি -আল্লাহ আমাদের জীবন থেকে বালা মুসিবত, পেরেশানি, বাধা-বিপত্তি,মুসিবত যখন সরিয়ে নেন আমরা তাকে আবারো ভুলে যাই। ভুলে যাই সেই কঠিন মূহুর্তের কথা গুলি। রহমতের কথা ভুলে গিয়ে আমরা ফিরে যাই আবার সেই আগের সচরাচর জীবনে।

আল্লাহ বলেন—
যদি কৃতজ্ঞতা স্বীকার কর, তবে তোমাদেরকে আরও দেব । (ইব্রাহীম –৭)

আল্লাহ অবশ্যই অবশ্যই নিঃসন্দেহে আমাদের “বৃদ্ধি করে দিবেন” ।কিন্তু কি বৃদ্ধি করে দিবেন ?

বৃদ্ধি করবেন আমাদের নিয়ামত গুলো ,আল্লাহর পক্ষ থেকে আমাদের উপহারগুলো ,আমাদের জীবনে ভাল যা কিছু ঘটে সবকিছু তিনি বৃদ্ধি করে দিবেন ।

কি করলে ?

আমরা যদি আল্লাহর প্রতি কৃতজ্ঞ হই !!
অর্থাৎ আল্লাহর নিয়ামত গুলো আমাদের কৃতজ্ঞতার সাথে ঘনিষ্ঠভাবে সম্পৃক্ত। আমরা যদি আল্লাহর অকৃতজ্ঞ হই তাহলে আমাদের জীবনে আপাতদৃষ্টিতে যা কিছু ভালো জিনিস আছে তা আসলে নিয়ামত নয় আল্লাহর পক্ষ থেকে শাস্তি অথবা একটা বড় ধরনের পরীক্ষা ।।

যেমন ধরুন একজন মানুষের একটি খুবই আরামদায়ক বিছানা আছে কিন্তু সে আল্লাহর প্রতি কৃতজ্ঞ না; এই বিছানাটাই তার জন্য আজাব বা শাস্তিতে পরিণত হতে পারে, কিভাবে??
সে এই বিছানায় এতই আরাম করে ঘুমায় যে ফজরের নামাজে সে উঠতেই পারে না ।সে আল্লাহর থেকে দূরে সরে গেল ।

অপরদিকে একজন মানুষের জীবনে আপাতদৃষ্টিতে খারাপ কিছু ঘটে গেল হয়তো তার বাবা-মা মর্মান্তিক ঘটনায় মৃত্যুবরণ করলেন ।(আল্লাহ আমাদের সকলের বাবা-মার হায়াতকে দীর্ঘ করে দিন. আর যাদের বাবা-মা মারা গেছেন তাদের ক্ষমা করুন)

উদাহরণস্বরূপ কারো বাবা-মা মর্মান্তিকভাবে দুর্ঘটনায় মারা গেল কিন্তু এর ফলে সে ইসলামকে পূর্ণাঙ্গ ভাবে পালন করা শুরু করল ,সে আল্লাহর প্রতি অকৃতজ্ঞ হলো না ;তাহলে আপাতদৃষ্টিতে খারাপ ঘটনাটাই প্রকৃতপক্ষে তার জীবনে আল্লাহর পক্ষ থেকে অনেক বড় একটি উপহার।

আল্লাহ আমাদের তার প্রতি কৃতজ্ঞ হওয়ার তাওফিক দান করেন আমিন।

googel
বিজ্ঞাপন