জনসচেতনতা বাড়াতে প্রকাশ্যে টিকা নেবেন ওবামা, বুশ, বিল ক্লিনটন

সাইদুর রহমান মিন্টু
বিজ্ঞাপন

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক,

করোনা ভাইরাসের টিকায় জনগণের আস্থা স্থাপনে অনন্য ভূমিকায় নামছেন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক তিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা, জর্জ ডব্লিউ বুশ এবং বিল ক্লিনটন। যুক্তরাষ্ট্রের ফুড এন্ড ড্রাগ এডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ) কোনো একটি টিকাকে নিরাপদ বলে অনুমোদন দিলেই ওই টিকা স্বেচ্ছায় নেবেন সাবেক এই তিন প্রেসিডেন্ট। তাদের টিকা নেয়ার দৃশ্য ক্যামেরায় ধারণ করে দেখানো হবে। এর মধ্য দিয়ে এ টিকা নিয়ে জনমনে কোনো আতঙ্ক বা ভয় থাকলে তা দূর হবে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন সিএনএন। জর্জ ডব্লিউ বুশের চিফ অব স্টাফ ফ্রেডি ফোর্ড সিএনএনকে বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের ৪৩তম প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশ এরই মধ্যে সাক্ষাত করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব এলার্জি এন্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসের পরিচালক ড. অ্যান্থনি ফাউচি, হোয়াইট হাউজের করোনা ভাইরাস বিষয়ক সমন্বয়কারী ড. ডেবোরাহ বিরক্সের সঙ্গে। তাদের কাছে জর্জ ডব্লিউ বুশ জানতে চেয়েছেন তিনি কিভাবে করোনা ভাইরাসের টিকা মানুষের মাঝে গ্রহণযোগ্যতায় সহযোগিতা করতে পারেন। ফ্রেডি বলেন, প্রায় এক সপ্তাহ আগে ড. ফাউচি এবং ড. বিরক্সের সঙ্গে এই যোগাযোগ হয়।

তিনি জানতে চান তিনি কি দেশবাসীকে টিকা নেয়ার ক্ষেত্রে উৎসাহিত করতে কোনো কিছু করতে পারেন। প্রথমত, যে টিকাই আসুক এটা নিরাপদ হতে হবে এবং তা বেশির ভাগ মানুষের কাছে পৌঁছাতে হবে। ফলে নিরাপত্তার মান নিশ্চিত করতে ক্যামেরার সামনে নিজে টিকা নিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন বুশ।
ওদিকে সাবেক প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটনের প্রেস সেক্রেটারি অ্যানজেল উরেনা বুধবার বলেছেন, বিল ক্লিনটনও জনসচেতনতা বাড়াতে এই টিকা নিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। অ্যানজেল উরেনা বলেন, আওতার মধ্যে আসামাত্র অবশ্যই টিকা নেবেন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন। জনস্বাস্থ্য বিষয়ক কর্মকর্তারা যে টিকাই অনুমোদন দিন না কেন অগ্রাধিকার ভিত্তিতে, তিনি সেটিই নেবেন। তিনি প্রকাশ্যে এটা নিতে চান, যদি তাতে মার্কিন জনগণকে উদ্বুদ্ধ করতে সহায়ক হয় এ জন্য।
ওদিকে সিরিয়াসএক্সএম উপস্থাপক জো ম্যাডিসনকে সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বলেছেন, অ্যান্থনি ফাউচি যদি কোনো করোনা ভাইরাসের টিকাকে নিরাপদ বলে মনে করেন, তিনি তার কথায় বিশ্বাস করবেন। ওবামা বলেন, আমি তার কথা পুরোপুরি বিশ্বাস করি। তিনি আরো বলেন, অ্যান্থনি ফাউচি যদি কোনো টিকাকে নিরাপদ বলেন, সেটা টিকা হিসেবে প্রয়োগের কথা বলেন, যদি বলেন, করোনা থেকে রক্ষা করে তাহলে এমন টিকা অবশ্যই আমি নেবো। যেসব মানুষ কম ঝুঁকিতে, যদি বলা হয় এই টিকায় তাদেরও কাজ হবে তাহলে আমি প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি, আমি এই টিকা নেবো।
এ ছাড়া সাবেক আরেক প্রেসিডেন্ট জিমি কার্টার এই টিকা নেবেন কিনা এ প্রশ্ন করেছিল সিএনএন। তবে তিনি কি উত্তর দিয়েছেন তা সিএনএন স্পষ্ট করেনি। এখানে উল্লেখ করার কথা হলো, বুশ পরিবারের একটি ঐতিহ্য আছে। তারা অন্য প্রেসিডেন্টদের সঙ্গে বড় বড় ইস্যুতে একত্রিত হন। ২০০১ সালের ১১ই সেপ্টেম্বর যখন নিউ ইয়র্কে সন্ত্রাসী হামলা হয় তার কয়েক দিন পরেই বাণিজ্যিক ফ্লাইট চালু হয়। কিন্তু লোকজন ফ্লাইটে উঠতে ভয় পাবেন- এমনটা ভেবে উদ্যোগ নিলেন জর্জ ডব্লিউ বুশের প্রয়াত পিতা ও সাবেক প্রেসিডেন্ট জর্জ এইচ ডব্লিউ বুশ ও তার স্ত্রী বারবারা বুশ। আবারও যে বাণিজ্যিক ফ্লাইট নিরাপদ এটা প্রমাণ করার জন্য তারা বাণিজ্যিক ফ্লাইটে অংশ নিয়েছিলেন। ওদিকে ২০০৫ সালে ঘূর্ণিঝড় ক্যাটরিনায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার জন্য অর্থ সংগ্রহের একটি কাজে একত্রিত হয়ে কাজ করেন সাবেক প্রেসিডেন্ট জর্জ এইচডব্লিউ বুশ ও বিল ক্লিনটন।

googel
বিজ্ঞাপন