অবৈধভাবে দখল করা বনভূমি পুনরুদ্ধারে কাজ করছে সরকার :পরিবেশমন্ত্রী

সাইদুর রহমান মিন্টু
বিজ্ঞাপন

✍ ডেস্ক রিপোর্ট
পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন বলেছেন, অবৈধভাবে দখল করা সরকারি বনভূমি পুনরুদ্ধার, পাহাড় ও টিলা কর্তন রোধ, লাইসেন্সবিহীন ইটভাটা বন্ধ এবং নিষিদ্ধ ঘোষিত পলিথিনের ব্যবহার বন্ধ করতে নিয়মিতভাবে অভিযান পরিচালনা করছে সরকার। তিনি বলেন, শব্দদূষণ, বায়ুদূষণ, নদীদূষণসহ সার্বিক পরিবেশ দূষণ নিয়ন্ত্রণ এবং নদীনালা, জলাশয় পুকুর ভরাট রোধ, জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণেও সরকার আন্তরিকভাবে কাজ করছে।

সচিবালয়ে আজ রোববার পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ আয়োজিত বিভাগীয় কমিশনার সমন্বয় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী এসব কথা বলেন। সচিব জিয়াউল হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমন্বয় সভায় পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার, অতিরিক্ত সচিব, বিভিন্ন দপ্তর ও সংস্থা প্রধান এবং দেশের সব বিভাগীয় কমিশনার বক্তব্য দেন।

পরিবেশ মন্ত্রী বলেন, সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় পরিবেশ সুরক্ষাসহ জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব মোকাবিলায় বাংলাদেশ সফল হবে। তিনি বলেন, ‘জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব জনগণের সামনে উপস্থাপন এবং জনগণকে সচেতন করছে সরকার। জনগণকে এভাবে সম্পৃক্ত করে দীর্ঘস্থায়ী বন্যা, ঘূর্ণিঝড়সহ অন্যান্য প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলার মতো পরিবেশ সুরক্ষায়ও আমরা সফল হবো।

বনমন্ত্রী বনভূমি সংরক্ষণের জন্য সংরক্ষিত বন ঘোষণার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার জন্য সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসকগণকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদানের জন্য বিভাগীয় কমিশনারদের অনুরোধ জানান। মন্ত্রী এ সময় উপকূলীয় অঞ্চলে বনায়ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করার মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট এলাকার মানুষের জীবনমান উন্নয়নে তাঁদের সহযোগিতা কামনা করেন।

সভায় বিভাগীয় কমিশনাররা সব ধরনের পরিবেশ দূষণ ও সরকারি বনভূমির অবৈধ দখল রোধ ও পুনরুদ্ধারে শূন্য সহিষ্ণুতা নীতিতে কাজ করার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।