সাইদুর রহমান মিন্টু
বিজ্ঞাপন

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফকে বৃটেন থেকে দেশে ফিরিয়ে আনতে নানা প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ইমরান খানের সরকার।  এজন্য প্রয়োজন হলে তিনি ব্যক্তিগতভাবে বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের সঙ্গে কথা বলতেও প্রস্তুত পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

তবে পাকিস্তানের অভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে বৃটিশ সরকার জড়িত হবে না বলে পাক কর্মকর্তাদের জানিয়ে দেয়া হয়েছে।  এ খবর জানিয়েছে ভারতের প্রভাবশালী সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

প্রতিবেদনে বলা হয়, চিকিৎসা নিতে বৃটেনে অবস্থান করছেন নওয়াজ শরীফ।  তবে সেখানে বসে তিনি দেশের রাজনীতিতে বড় প্রভাব সৃষ্টি করেছেন।  সম্প্রতি ৯ দলীয় যে সরকার বিরোধী জোট হয়েছে তাতে তিনি ভিডিও কনফারেন্সে যোগ দিয়ে অগ্নিঝরা বক্তব্য রেখেছেন।

এদিকে নওয়াজের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি রয়েছে।  তবে দৃশ্যত, সহসাই দেশে ফিরছেন না নওয়াজ।

শুক্রবার এআরওয়াই নিউজকে সাক্ষাৎকারে ইমরান খান বলেছেন, যেহেতু নওয়াজ শরীফকে বৃটেন থেকে দেশে আনা একটি দীর্ঘমেয়াদী প্রক্রিয়া, তাই তাকে দ্রুত দেশে ফেরত পাঠানোর বিষয়ে বৃটিশ সরকারের কর্মকর্তাদের সঙ্গে আমরা নিয়মিত যোগাযোগ রাখছি।  তাকে ফেরত পেতে আমরা পূর্ণাঙ্গ প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।  যদি আমি পারি, তাহলে বরিস জনসনের সঙ্গে কথা বলবো।

প্রসঙ্গত, প্রায় এক মাসের বেশি সময় নওয়াজ শরীফের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা বাস্তবায়নের জন্য পাকিস্তান সরকার বারবার চেষ্টা করেছে। কিন্তু তিনি বৃটেনে অবস্থান করার কারণে এক্ষেত্রে তারা সফল হয়নি।

নিউজ ইন্টারন্যাশনালের প্রতিবেদনে বলা হয়, লন্ডনে দায়িত্বরত পাকিস্তানের কূটনীতিকরা নওয়াজ শরীফের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা বাস্তবায়নে সহায়তার জন্য বৃটিশ সরকারের কাছে আহ্বান জানিয়েছেন।  কিন্তু বৃটেন সরকার তা প্রত্যাখ্যান করেছে।

googel
বিজ্ঞাপন