সিএনএনের জরিপ ট্রাম্পের আচরণ নিয়ে প্রশ্ন বেশির ভাগ মার্কিনির

বেশির ভাগ মার্কিন নাগরিক মনে করেন, দায়িত্বহীনের মতো কাজ করেছেন করোনা আক্রান্ত প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। তার স্বাস্থ্যগত বিষয়ে হোয়াইট হাউজ থেকে যা বলা হয়েছে, তার প্রতিও তাদের আস্থা নেই। এমন মার্কিনির হার তিন ভাগের মধ্যে দুই ভাগ। সিএনএন পোল-এর পক্ষে নতুন একটি জরিপ চালায় এসএসআরএস। তাতেই উঠে এসেছে এসব তথ্য। এতে বলা হয়েছে, প্রেসিডেন্টের স্বাস্থ্য নিয়ে হোয়াইট হাউজ থেকে যা বলা হয়েছে তার সামান্যই বিশ্বাস করেন যুক্তরাষ্ট্রের শতকরা ৬৯ ভাগ মানুষ। আর সেইসব ভাষ্য বিশ্বাস করেন শতকরা মাত্র ১২ ভাগ। ওদিকে করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যেভাবে মোকাবিলা করেছেন তা অনুমোদন করেন না শতকরা ৬০ ভাগ মার্কিনি।
নিজে আক্রান্ত হওয়ার পরও করোনা বিষয়ে তার মনোভাবের পরিবর্তন ঘটবে না বলে মনে করেন শতকরা ৬৩ ভাগ মার্কিনি। ট্রাম্পের সার্বিক অনুমোদন বা এপ্রুভাল রেটিং দাঁড়িয়েছে শতকরা ৪০ ভাগ। তাকে অনুমোদন করেন না এমন শতকরা হার ৫৭। সেপ্টেম্বরে তাকে অননুমোদনের হার ছিল ৫৩ ভাগ। তা বৃদ্ধি পেয়েছে ৪ ভাগ। ট্রাম্প অসুস্থ থাকা অবস্থায় সরকার পরিচালনায় সক্ষমতা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন শতকরা ৩২ ভাগ মানুষ। এই উদ্বেগ সবচেয়ে বেশি ডেমোক্রেটদের মধ্যে। তাদের বেলায় এই হার শতকরা ৪৮ ভাগ। অন্যদিকে রিপাবলিকানদের মধ্যে এই হার শতকরা ১৫ ভাগ। শতকরা ৬২ ভাগ বলেছেন, প্রয়োজন হলে পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য যোগ্যতা আছে ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের। তবে শতকরা ৩৫ ভাগ বলেছেন, তার সেই যোগ্যতা নেই। দলীয়ভিত্তিতে এই হার ভিন্ন ভিন্ন। মাইক পেন্সের ওপর আস্থা রাখেন রিপাবলিকানদের শতকরা ৯৩ ভাগ। ডেমোক্রেটদের শতকরা মাত্র ৩৮ ভাগ। করোনা আক্রান্ত হয়ে চারপাশের অন্যদের সঙ্গে যেভাবে আচরণ করছেন ট্রাম্প তাকে দায়িত্বহীনের মতো বলে মনে করেন শতকরা ৭২ ভাগ নারী। ৬৫ বছর বা তারও বেশি বয়সীদের ক্ষেত্রে এই হার শতকরা ৬৬ ভাগ। প্রেসিডেন্ট দায়িত্বসম্পন্ন আচরণ করেছেন বলে মনে করেন তার সমর্থকদের মধ্যে শতকরা ৭৯ ভাগ। রিপাবলিকানদের মধ্যে এই হার শতকরা ৭৬ ভাগ।