নারী ক্রীড়াবিদকে ১০ লাখ টাকা দিলেন প্রধানমন্ত্রী

সাইদুর রহমান মিন্টু
বিজ্ঞাপন

নারী ক্রীড়াবিদ সান্ত্বনা রানী রায়কে (৩৬) ১০ লাখ টাকা অনুদান দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার বিকালে নিজ কার্যালয়ে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে তার হাতে অনুদানের চেক তুলে দেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল এমপি।

ক্রীড়াবিদ সান্ত্বনা রানী রায় সেই সংগ্রামী ক্রীড়াবিদ যিনি পরের বাড়িতে গৃহপরিচারিকার কাজ করে, লাঙ্গল চাষ করেও একজন সফল ক্রীড়াবিদ হয়েছেন। জাতীয় আইটিএফ তায়কোয়ান্দো চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নিয়ে টানা পাঁচবার স্বর্ণ জিতেছেন। ২০তম বিশ্ব তায়কোয়ান্দো প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে ব্রোঞ্জ পদক অর্জন করেছেন।

সান্ত্বনা রানীর সংগ্রামী জীবন ও ক্রীড়াবিদ হিসাবে তার স্বীকৃতি নিয়ে গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ হলে বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর নজরে আসে।এবার এই তায়কোয়ানদো খেলোয়াড়কে ১০ লাখ টাকা অনুদান দিয়ে সহযোগিতা করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

চেক প্রদান করে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের সৌভাগ্য যে এমন একজন ক্রীড়াবান্ধব প্রধানমন্ত্রী পেয়েছি। তিনি সবসময় আমাদের অসহায় ক্রীড়াবিদদের সহযোগিতা করে থাকেন। ক্রীড়ার উন্নয়নে আমরা যখনই যা চেয়েছি, প্রধানমন্ত্রী তা আমাদের দিয়েছেন।’
অনুদান পেয়ে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে সান্ত্বনা রানী রায়।

গণমাধ্যমকে এর প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, আমার বিপদের সময় পাশে দাঁড়িয়েছে বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার প্রতি আমি চিরকৃতজ্ঞ। আর সব অর্জন দেশবাসীরই। আগামীতে দেশের হয়ে আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় শিরোপা অর্জনের জন্য প্রাণপণ চেষ্টা করে যাব। দেশবাসীর কাছে দোয়া ও আশীর্বাদ কামনা করছি।
বাংলাদেশের এই সেরা তায়কোয়ান্দো খেলোয়াড়ের বাড়ি লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার সারপুকুর ইউনিয়নের হরিদাস গ্রামে। তার বাবার নাম সুবাশ চন্দ্র রায় ও মায়ের নাম যমুনা রানী রায়। তায়কোয়ান্দোর আন্তর্জাতিক আসরে বেশ কয়েকটি পুরস্কার রয়েছে স্বান্তনার।

৫টি ঘরোয়া প্রতিযোগিতা ও দুটি আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে ৫টি স্বর্ণ এবং একটি করে রৌপ্য ও ব্রোঞ্জ পদক পেয়েছেন সংগ্রামী এ নারী ক্রীড়াবিদ।

googel
বিজ্ঞাপন