এক সংবাদকর্মীর মানবেতর জীবন যাপন দেখার কেউ নাই

ডেস্ক রিপোর্টঃ নীলফামারীর জলঢাকায় হাসানুর কাবির মেহেদী ৪০ নামের এক সাংবাদিক দীর্ঘদিন কর্মহীন থাকায় স্ত্রী সন্তান নিয়ে অনাহারে অর্ধাহারে দিনাতিপাত করছে। পাশে দাড়ানোর মত কেউ নাই। জানা গেছে উপজেলার নেকবক্ত সিদ্ধেশ্বরী গ্রামের মৃত আঃহাইয়ের পুত্র ওই সাংবাদিক ২০০০ইং সালে স্থানীয় সাপ্তাহিক জলকথা দিয়ে সাংবাদিকতা শুরু করেন।
পাশাপাশি টিউশনি করে দিন ভাল চলছিল।এর পর আর পিছনে তাকাতে হয়নি তাকে ।সাপ্তাহিক ফলোআপ দৈনিক উত্তরবাংলা বাংলাবাজার কালবেলাসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও অনলাইন মিডিয়ায় সুনামের সাথে কাজ করেন।২০০১সালে জলকথা পত্রিকাটি দৈনিকে পরিনত হলে সম্পাদক অধ্যাপক গোলাম মোস্তফা তাকে প্রথমে উপসম্পাদক ও পরে বার্তা বিভাগের দায়িত্ব পালন করেন।কিন্তু ২০১৪সালে পত্রিকার সম্পাদক এমপি নির্বাচিত হলে অজানা কারনে সহ সম্পাদক প্রিন্টার্স লাইন থেকে তার নাম বাদ দেয়।ফলে বেকার হয়ে যায় সাংবাদিক হাসানুর কাবির মেহেদী। প্রেসক্লাবের যুগ্ন সম্পাদক হওয়ার কারনে স্থানীয় সংবাদকর্মীরা মাঝে মাঝে সহযোগিতা করত।
সর্বশেষ ২০১৭সালে স্থানীয় সাংবাদিকদের সহায়তায় ১টি মেয়ের বিয়ে দেন।এখন ১টি ছেলে ও মেয়ে সিদ্ধেশ্বরী একটি শীর্ন কুটিরে বাস করছেন ওই সংবাদকর্মী।এমনিতেই বেকার তার উপর করোনার প্রভাব।দিশেহারা হয়ে পড়েছে ওই সংবাদকর্মী।কান্নাজড়িত কন্ঠে তার কষ্টের কথাগুলো জানালেন এএনবি২৪.কম কে।মানুষ মানুষের জন্য ।জীবন জীবনের জন্য।একটু সহানুভুতি মানুষ কি পেতে পারে না।ও বন্ধু।অসহায় ওই সংবাদকর্মী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সহ হ্রদয়বান ব্যক্তিদের সহযোগিতা কামনা করেছে।

মোবাইলঃ 01834360335