সোমালিয়ার হোটেলে জঙ্গি হামলা : নিহত ১৭

Add your HTML code here...

✍ আন্তর্জাতিক ডেস্ক রিপোর্ট

সোমালিয়ার রাজধানী মোগাদিসুর এক হোটেলে বন্দুক ও বোমা হামলায় অন্তত ১৭ জন প্রাণ হারিয়েছে। জঙ্গিগোষ্ঠী আল শাবাব এ হামলার দায় স্বীকার করেছে।

খবর আলজাজিরার

সরকারি মুখপাত্র মুক্তার মার্কিন বার্তা সংস্থা এপিকে নিশ্চিত করেছেন, নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে গোলাগুলিতে ৪ জঙ্গির সবাই নিহত হয়েছে।

রবিবার (১৬ আগস্ট) একটি আত্মঘাতী গাড়ি বোমা হামলা দিয়ে শুরু হয় এ নৃশংস হত্যাকাণ্ড।

সরকারি মুখপাত্র ইসমায়েল মুক্তার ওমর জানিয়েছেন, সৈকতসংলগ্ন এলিট হোটেলে আল শাবাবের জঙ্গি ও নিরাপত্তা বাহিনীর মধ্যে প্রায় ৩ ঘণ্টা বন্দুকযুদ্ধ চলে। নিহতদের মধ্যে দুজন সরকারি চাকরিজীবী, তিনজন হোটেল নিরাপত্তারক্ষী, চার বেসামরিককে শনাক্ত করার কথা জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। বাকিদের পরিচয় এখনো জানা যায়নি।

রবিবার বিকালের শক্তিশালী গাড়ি বোমা বিস্ফোরণে উড়ে যায় হোটেলের নিরাপত্তা গেট। তারপর দৌড়ে বন্দুকধারীরা হোটেলে ঢুকে জিম্মি করে অতিথিদের, বেশিরভাগই তখন ছিলেন খাবার রুমে। হামলা শুরুর পরপরই অ্যাম্বুলেন্সের সাইরেন শোনা যায় এবং সামরিক যান অবস্থান নেয় হোটেলের সামনে। কর্মকর্তা জানান রাতের অন্ধকারের কারণে বন্দিদশার সময় বেড়েছে।

চারতলার এই হোটেলের বেশিরভাগ অতিথিকে উদ্ধার করা হয়েছে। আহত ২৮ জনকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় অ্যাম্বুলেন্স সেবা প্রধান আব্দুলকাদির আবদিরাহমান আদান।

প্রত্যক্ষদর্শীরা নিশ্চিত করেছেন, একটি ভয়াবহ বিস্ফোরণে হামলা শুরু হয় এবং গোলাগুলি শুরু হতে অনেকে ওই এলাকা থেকে পালিয়ে যান। আলী সায়িদ আদান নামের এক ব্যক্তি বলেছেন, বিস্ফোরণটা ছিল অনেক ব্যাপক এবং তিনি ওই এলাকায় ধোঁয়া দেখতে পাচ্ছিলেন। অনেক চিৎকার শোনা যাচ্ছিলো এবং কাছের ভবনগুলো থেকে অনেকে পালিয়ে গেছে।

এ হামলার দায় স্বীকার করেছে আল শাবাব। সাইট ইন্টেলিজেন্স গ্রুপ তাদের হয়ে বিবৃতি প্রকাশ করেছে। সেখানে দাবি করা হয়েছে, তাদের যোদ্ধা শহীদ হওয়ার পথে ‘হোটেলের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছিল।’