কাদামাটিতে আটকে আছে বিএনপির রাজনীতি : ওবায়দুল কাদের

DSLR Cameras/ https://amzn.to/2P4hlHWCanon EOS Rebel T7 DSLR Camera with 18-55mm Lens | Built-in Wi-Fi|24.1 MP CMOS Sensor | |DIGIC 4+ Image Processor and Full HD Videos$359.99এই ক্যামেরা টি কিন্তে এখানে কিল্ক করুন

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘বিএনপি নামক দলটি সরকারের কোনো ইতিবাচক প্রয়াস দেখতে পায় না। তারা সমালোচনা আর মিথ্যাচারের বৃত্তে আবর্তিত হচ্ছে। দিনের আলোতে দেখতে পায় রাতের অন্ধকার। প্রেস ব্রিফিং আর নেতিবাচকতার কাদামাটিতে আটকে আছে তাদের রাজনীতি।’

ওবায়দুল কাদের আজ মঙ্গলবার বিকেলে সর্ব ইউরোপীয় শাখা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে ‘বাংলাদেশের এই সময়ে’ শীর্ষক আলোচনা সভায় একথা বলেন। তিনি তাঁর সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আলোচনা সভায় যুক্ত হন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘বিদেশে অবস্থান করলেও আপনাদের হৃদয়জুড়ে বাংলাদেশ। দেশের যে কোনো ভালো সংবাদ যেমনি আপনাদের আনন্দিত করে তেমনি খারাপ সংবাদ ব্যথিত করে। একটি মতলবি মহল দেশ ও বিদেশে সরকারের বিরুদ্ধে অব্যাহতভাবে মিথ্যাচার ও অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। তারা সরকারের সমালোচনা করতে গিয়ে দেশের ইমেজ নষ্ট করছে। লাখ লাখ প্রবাসীর অবস্থানকে নড়বড়ে করছে। সম্প্রতি ইতালি বিএনপির এক নেতার এক বক্তব্যে ইতালি প্রবাসীদের মাঝে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে।’

সেতুমন্ত্রী বলেন, চলছে শোকাবহ আগস্ট মাস। এ মাসে আমরা হারিয়েছি পরিবারের সদস্যসহ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। আগস্ট মাস মানে হারানোর বেদনা। হায়েনাদের অট্টহাসি আর ষড়যন্ত্রের গন্ধ। যে বুলেট ১৫ আগস্ট রাতের শেষ প্রহরে হানা দিয়েছিল সে বুলেট ২১ আগস্ট আরো নির্মম হয়ে হানা দিয়েছিল বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউতে। ১৫ আগস্টে প্রাইম টার্গেট ছিল বঙ্গবন্ধু আর ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার প্রাইম টার্গেট ছিল বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ষড়যন্ত্রের কুশীলবরা শুধু রূপ পরিবর্তন করে, হারায় না। আগস্ট এলে তাই আমাদের বেদনার মুকুরে ক্ষরিত হয় লোহিত শোণিত। ষড়যন্ত্রকারীদের অব্যাহত অপচেষ্টা আজও চলমান। আমাদের সকলকে সচেষ্ট থাকতে হবে, সতর্ক থাকতে হবে- উন্নয়ন অগ্রযাত্রাবিরোধী এ অপশক্তির ষড়যন্ত্র সম্পর্কে।

প্রবাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের বিরুদ্ধে যে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে তার বিরুদ্ধে সবাইকে সোচ্চার থাকার আহ্বান জানিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, প্রবাসে আপনারা ঐক্যবদ্ধ থাকুন। শেখ হাসিনা সরকারের ইতিবাচক অর্জন তুলে ধরুন, প্রচার করুন। প্রবাসে আপনাদের মধ্যে যারা তুলনামূলকভাবে ভালো অবস্থানে আছেন তাঁদের দায়িত্ব একটু বেশি। যারা সমস্যায় আছেন তাদের পাশে দাঁড়ান।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আওয়ামী লীগ একটি বৃহত্তর পরিবারের মতোই। দেশ-বিদেশের যেখানেই এ পরিবারের সদস্যরা অবস্থান করুক- সবাই অবিচ্ছেদ্য এক বন্ধনে আবদ্ধ। আমাদের আদর্শের ঠিকানা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আর আমাদের আস্থার বাতিঘর বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও রক্তের উত্তরসূরি শেখ হাসিনা। যে যেখানেই জীবন-জীবিকার প্রয়োজনে অবস্থান করি না কেন আমরা হৃদয়ের গভীরে লালন করি লাল-সবুজের বাংলাদেশ। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর বছর চলছে। অপরদিকে এখন আগস্ট মাস। আপনারা বিদেশের মাটিতে নিজেদের মধ্যে ছোটখাট বিষয়গুলো মানবিক উদারতা দিয়ে পরিহার করুন। গড়ে তুলুন সুদৃঢ় ঐক্য। শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করুন। আপনারা শক্তিশালী ও ঐক্যবদ্ধ হওয়া মানে প্রবাসে বাংলাদেশ শক্তিশালী হওয়া।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আমরা যার যার অবস্থান থেকে প্রিয় নেত্রী, আমাদের আস্থার প্রতীক বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করি। আর ইতালির বিষয়টি ভালোভাবে দেখার জন্য নেত্রী আপনাদের নির্দেশ দিয়েছেন, পাশাপাশি আপনাদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। নিজেদের মধ্যে ছোট খাটো কোনো সমস্যা থাকলে তিনি তা মিটিয়ে ফেলারও নির্দেশ দিয়েছেন।

সভায় সর্ব ইউরোপীয় আওয়ামী লীগের সভাপতি এন নজরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান প্রমুখ বক্তব্য দেন।