ভারতে ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত প্রায় ৫৫ হাজার, মৃত ৮৫৩

DSLR Cameras/ https://amzn.to/2P4hlHWCanon EOS Rebel T7 DSLR Camera with 18-55mm Lens | Built-in Wi-Fi|24.1 MP CMOS Sensor | |DIGIC 4+ Image Processor and Full HD Videos$359.99এই ক্যামেরা টি কিন্তে এখানে কিল্ক করুন

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ভারতে প্রতিদিন করোনা আক্রান্তের সংখ্যা উত্তরোত্তর বাড়ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৫৪,৭৩৬ জন আক্রান্ত হওয়ায় দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যাটা ১৭ লাখ ছাড়িয়ে গেল।

বর্তমানে দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৭ লাখ ৫০ হাজার ৭২৪। বর্তমানে আক্রান্তের দিক দিয়ে অনেক দেশকে পেছনে ফেলে শীর্ষ তিনে অবস্থান করছে ভারত। ভারতের ওপরেই করোনায় মৃত্যুপুরীতে পরিণত ব্রাজিল ও যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এদিকে মৃত্যু সংখ্যায়ও করোনায় বিপর্যস্ত ইতালিকে পেছনে ফেলেছে ভারত। দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে আরও ৮৫৩ জন করোনা রোগীর। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুসারে করোনায় সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৫,৬৭,৭৩০। সুস্থ হয়েছেন ১১,৪৫,৬৩০ জন। মৃত ৩৭,৩৬৪।

শুরু থেকেই মহারাষ্ট্র সংক্রমণের শীর্ষে রয়েছে। ইতোমধ্যে সেখানে চার লাখ ছাড়িয়েছে আক্রান্তের সংখ্যা। দ্বিতীয় স্থানে থাকা তামিলনাড়ুতে মোট আক্রান্ত দু’লাখ ৪৫ হাজার ৮৫৯ জন। গত কয়েক দিন ধরে রোজ প্রায় দশ হাজার করে নতুন সংক্রমণ হচ্ছে অন্ধ্রপ্রদেশে।

পশ্চিমবঙ্গে করোনার দাপট অব্যাহত। রেকর্ড সংখ্যক টেস্টের দিনই আক্রান্ত এবং মৃত্যুর নয়া রেকর্ড সৃষ্টি হল রাজ্যে। যার জেরে শনিবার মোট আক্রান্তের সংখ্যা সাড়ে ৭২ হাজারের গণ্ডি ছাড়িয়ে গেল। আর গত গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার বলি হয়েছেন আরও ৪৮ জন। অর্থাৎ প্রতি ৩০ মিনিটে রাজ্যে ১ জন করে করোনা আক্রান্তের মৃত্যু হয়েছে।

তবে এতো কিছুর মধ্যেও সুস্থতার হার বৃদ্ধি পাওয়ায় খানিকটা স্বস্তিতে রয়েছে ভারত। দেশে এখনও পর্যন্ত ১১ লাখ ৪৫ হাজার ৬২৯ জন করোনা রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন। অর্থাৎ মোট আক্রান্তের ৬৫.৪৪ শতাংশই সেরে উঠেছেন চিকিৎসায়। গত ২৪ ঘণ্টায় ৫১ হাজার ২৫৫ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

এদিকে পরিসংখ্যানবিষয়ক ওয়েবসাইট ওয়ের্ল্ডোমিটারসের তথ্যমতে রোববার সকাল পর্যন্ত বিশ্বের বিভিন্ন দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৬ লাখ ৮৯ হাজার ৭৫ জনের এবং আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ কোটি ৮০ লাখ ৩৪ হাজার ৬৫ জনের। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১ কোটি ১৩ লাখ ৩৯ হাজার ১৩৬ জন।