স্বাস্থ্যবিধি মানাতে প্রশাসনকে কঠোর ভূমিকা রাখার আহ্বান

ফাইল ছবি

ডেস্ক রিপোর্ট,
করোনা সংক্রমণ রোধে ঈদুল আজহায় ঘরমুখো মানুষকে স্বাস্থ্যবিধি মানাতে প্রশাসনকে কঠোর ভূমিকা রাখার আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিতে মাস্ক পরিধান বাধ্যতামূলক করেছে সরকার জানিয়ে এটা সিরিয়াসলি দেখতে পুলিশসহ সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান সেতুমন্ত্রী।তিনি বলেন, তা না হলে এই যাত্রা অনেকের জন্য অন্তিম যাত্রায় পরিণত হবে।
ঈদযাত্রা নির্বিঘ্ন করতে ফ্লাইওভারসহ অন্যান্য চলমান উন্নয়ন কাজ সাময়িক বন্ধ রাখতে আবারও নির্দেশ দিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

সোমবার জাতীয় সংসদ ভবন এলাকায় অবস্থিত সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন থেকে ঈদ সামনে রেখে গাজীপুরের সড়ক বিভাগ, মেয়র, সংসদ সদস্য ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সাথে এক ভিডিও কনফারেন্সে এ নির্দেশ দেন তিনি।

করোনা সংক্রমণ রোধে ঈদুল আজহায় ঘরমুখো মানুষকে স্বাস্থ্যবিধি মানাতে প্রশাসনকে কঠোর ভূমিকা রাখার আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিতে মাস্ক পরিধান বাধ্যতামূলক করেছে সরকার জানিয়ে এটা সিরিয়াসলি দেখতে পুলিশসহ সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান সেতুমন্ত্রী।তিনি বলেন, তা না হলে এই যাত্রা অনেকের জন্য অন্তিম যাত্রায় পরিণত হবে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রতি বছর সমন্বয়ের মাধ্যমে ঈদের সময় ঘরমুখো মানুষের যাত্রা নির্বিঘ্ন করতে পদক্ষেপ গ্রহণ করি এবং সবার সহযোগিতায় বাস্তবায়ন করি। এবার ঈদের সাথে যে চালেঞ্জ যুক্ত হয়েছে সেটি হচ্ছে করোনা সংক্রমণের কঠিন চ্যালেঞ্জ। পাশাপাশি রয়েছে দেশের বন্যা পরিস্থিতি। সরকার জনগণের সার্বিক বিষয় বিবেচনা করে জনস্বার্থে গণপরিবহন চলাচল অব্যাহত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মহাসড়কের অবস্থা ভালো। অতিবৃষ্টি বা অবিরাম বৃষ্টি না হলে কোথাও যানজটের কারণ হবে না।

বগুড়া, শফিপুর, চন্দ্রা করিডোরে ফ্লাইওভারের কারণে কিছু অসুবিধা হতে পারে আশঙ্কা ব্যক্ত করে মন্ত্রী বলেন, এই করিডোর ব্যবস্থাপনায় বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে পুলিশ ও সিটি কর্পোরেশনকে। ঈদের আগের দুদিন গাজীপুর এলাকার গার্মেন্টগুলো ছুটি হওয়ায় যাত্রীদের চাপ বেড়ে যায়। বিজিএমই’র সাথে পরিকল্পনা করে বাড়তি চাপ মোকাবিলার প্রস্তুতি নিতে হবে। গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টসমূহে সিসি ক্যামেরা লাগানো হচ্ছে সড়ক জোনের উদ্যোগে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, কোরবানির পশুবাহী পরিবহন ধীরগতিতে চলে। পশুবাহী যানবাহন বা সাধারণ যানবাহন বিকল হলে তৈরি হয় যানজট। আমি আগে থেকেই র‌্যাকারসহ বিভিন্ন প্রয়োজনীয় জিনিস রাখতে হাইওয়ে পুলিশকে অনুরোধ করছি। ঈদের আগে তিন দিন ভারী যান চলাচল বন্ধ থাকবে এবং কোনো অবস্থায় ইজিবাইকের মতো তিন চাকার গাড়ি ব্যাটারিচালিত রিকশা চলতে দেয়া যাবে না।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সার্বক্ষণিক বিষয়গুলো মনিটরিং করছেন বলেও জানান সেতুমন্ত্রী।

সড়ক দুর্ঘটনা রোধে সংশ্লিষ্টদের সতর্ক হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ঈদের আগের চেয়ে পরে সড়ক দুর্ঘটনা বেশি হয়। সেজন্য তৎপরতা বাড়াতে হবে। কোনো শৈথিল্য দেখানো যাবে না। পুলিশ বিশেষ করে হাইওয়ে পুলিশের পাশাপাশি সতর্কতার সঙ্গে গাড়ি চালাতে মালিক-চালকদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

দেশের বন্যা পরিস্থিতি প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বন্যা দেশের উত্তরাঞ্চল থেকে মধ্যাঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে। বিশেষজ্ঞরা এই বন্যা দীর্ঘস্থায়ী হওয়ার আশঙ্কা করেছেন। ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রী দুর্গত এলাকার মানুষের জন্য মানবিক সহায়তার নির্দেশনা দিচ্ছে। এসব এলাকায় খাদ্যসহ প্রয়োজনীয় সবকিছু প্রেরণ করা হয়েছে।’

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের বন্যাদুর্গত মানুষকে ও প্রশাসনকে সহায়তা করার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সম্পন্নের জন্য সমন্বয় কমিটি গঠনের নির্দেশনা দিয়েছেন।

এ সময় দলের জনপ্রতিনিধি ও নেতাকর্মীদের অতীতের মতো মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান ওবায়দুল কাদের
টঙ্গী হতে গাজীপুর চৌরাস্তা এবং বাইপাস, নবীনগর-চন্দ্রা, ভোগড়া-চন্দ্রা-কালিয়কৈর-এলেঙ্গা করিডোর পর্যন্ত ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা যথাযথ করার নির্দেশ দিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, তাহলে ঘরমুখো মানুষের ভোগান্তি কম হবে।
ঈদের আগের ২দিন গাজীপুর এলাকার গার্মেন্টসগুলো ছুটি হওয়ায় যাত্রীদের চাপ বেড়ে যায় তাই বিজেএমইর সাথে পরিকল্পনা করে বাড়তি চাপ মোকাবিলার প্রস্তুতি নিতে হবে বলেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী।