মালয়েশিয়ায় গ্রেপ্তার রায়হান ক্রাইম করিনি, মিথ্যা বলিনি

DSLR Cameras/ https://amzn.to/2P4hlHWCanon EOS Rebel T7 DSLR Camera with 18-55mm Lens | Built-in Wi-Fi|24.1 MP CMOS Sensor | |DIGIC 4+ Image Processor and Full HD Videos$359.99এই ক্যামেরা টি কিন্তে এখানে কিল্ক করুন

ডেস্ক রিপোর্ট,

মালয়েশিয়ায় নিজেকে নির্দোষ দাবি করেছেন বাংলাদেশি শ্রমিক মোহাম্মদ রায়হান কবির। শ্রমিক নির্যাতন নিয়ে কাতারভিত্তিক আল জাজিরাকে একটি সাক্ষাতকার দেয়ার কারণে শুক্রবার তাকে গ্রেপ্তার করেছে কর্তৃপক্ষ। তবে এর আগে রায়হান কবির অভিবাসীদের সম্মান নিশ্চিত করার আহ্বান জানান। অভিবাসী শ্রমিকদের অধিকার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমি কোনো ক্রাইম করি নি। আমি মিথ্যা বলি নি। আমি শুধু অভিবাসীদের বিরুদ্ধে বৈষম্য নিয়ে কথা বলেছি। এ খবর দিয়েছে অনলাইন মালয় মেইল। এতে বাংলাদেশি একটি মিডিয়ার উল্লেখ করে বলা হয়, গ্রেপ্তারের আগে রায়হান বাংলাদেশি একজন সাংবাদিককে তার হোয়াটসঅ্যাপ ম্যাসেজ পাঠাতে সক্ষম হন।
এতে তিনি জানান, তাকে মালয়েশিয়া কর্তৃপক্ষ খুঁজছে- এটা তিনি জানেন। তিনি বলেন, আমি মনে করি সব অভিবাসী ও বাংলাদেশ আমার পক্ষে দাঁড়াবেন।
রায়হানের পিতা বাংলাদেশে একজন গার্মেন্টকর্মী। তিনি বলেছেন, বাংলাদেশি আরেকজনের কাছ থেকে তিনি তার ছেলেকে গ্রেপ্তারের খবর জানতে পেরেছেন। ছেলের মতো তিনিও বিশ্বাস করেন, রায়হান কোনো অপরাধ করেন নি। সেখানে শুধু শ্রমিকদের ওপর চালানো বৈষম্যের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেছেন তিনি। তার পিতা শাহ আলম বলেছেন, শৈশব থেকেই আমার ছেলে প্রতিবাদী। কিন্তু কখনো তাকে অন্যায় করতে দেখি নি। পড়াশোনা শেষ করে সে মালয়েশিয়া গিয়েছে। শাহ আলম বলেন, গত এক মাস ধরে রায়হানের মা অসুস্থ। এরই মধ্যে বৈষম্য ও শ্রমিক নির্যাতনের প্রতিবাদ করার কারণে আমার ছেলেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কান্নাজড়িত কণ্ঠে তিনি বলেন, আমি চাই বাংলাদেশ তার পাশে দাঁড়াবে।
উল্লেখ্য, কাতারভিত্তিক আল জাজিরার প্রামাণ্যচিত্র ‘লকড আপ ইন মালয়েশিয়াস লকডাউন’-এ মালয়েশিয়ায় অবৈধ অভিবাসী শ্রমিকদের দুর্দশা নিয়ে কড়া সমালোচনা করেন রায়হান। সেখানে অবৈধ অভিবাসী শ্রমিকদের যেসব স্থানে আটকে রাখা হয়েছে, সেখানকার অবস্থা বর্ণনা করেন তিনি। এরপরই তার বিরুদ্ধে সরকার প্রচারণা চালায়। ২৫ মিনিট ৫০ সেকেন্ডের ওই প্রমাণ্যচিত্রে অবৈধ শ্রমিকদের বিরুদ্ধে কর্তৃপক্ষের বর্ণবাদী আচরণের অভিযোগ তুলে ধরেন তিনি। দাবি করেন, মালয়েশিয়ায় অবৈধ অভিবাসী হওয়া কোনো ক্রাইম নয়। এ কারণে মালয়েশিয়ার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় রায়হানের ওয়ার্ক পারমিট বাতিল করে। রায়হানের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ক্ষোভ প্রকাশ করেন অনেক মালয়েশিয়ান।