ভারতে ডাক্তার পরিচয়ে করোনা আক্রান্ত নারীকে ধর্ষণ!

✍ আন্তর্জাতিক ডেস্ক
ভারতের মহারাষ্ট্রের একটি কোয়ারেন্টিন সেন্টারে করোনায় আক্রান্ত এক নারী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

গত বৃহস্পতিবার রাতে ৪০ বছর বয়সী ওই নারীকে ধর্ষণের ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মহারাষ্ট্রের পানভেল থানার পুলিশ কর্মকর্তা অশোক রাজপুত। খবর দ্য হিন্দু।

মামলায় বলা হয়েছে, করোনার উপসর্গ দেখা যাওয়ার পর অভিযোগকারী ওই নারীকে পানভেলের কোনগাঁওয়ের ইন্ডিয়াবুলস কোয়ারেন্টিন সেন্টারে নিয়ে আসা হয়। ধর্ষণের দায়ে অভিযুক্ত ব্যক্তিকেও সেখানেই রাখা হয়েছিল। গত বৃহস্পতিবার রাতে অভিযুক্ত ব্যক্তি ওই নারীর কক্ষে যায়। সেখানে ওই নারীকে ধর্ষণ করে অভিযুক্ত।

সহকারী পুলিশ পরিদর্শক নীতিন পাগর জানান, ঘটনার দিন সকাল সাড়ে ৭টায় অভিযুক্ত ব্যক্তি ওই নারীর রুমে প্রবেশ করেন এবং তাকে বলেন যে, তিনি একজন ডাক্তার।

‘এরপর অভিযুক্ত তার স্বাস্থ্যের বিষয়ে খোঁজখবর নেন এবং তিনি (নারী) তাকে বলেছিলেন যে, তার শরীরের ব্যথা রয়েছে। অভিযুক্ত জানায়, তার ম্যাসেজ প্রয়োজন। এজন্য তার পোশাক খুলে ফেলা হয়। তারপরে তিনি তাকে ধর্ষণ করেন।’

এদিকে এ ঘটনায় কোয়ারেন্টিন সেন্টারে নারীদের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে। পানভেল পুলিশ অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৬ ধারায় মামলা দায়ের করেছে। ঘটনার বিস্তারিত তদন্ত শুরু হয়েছে।

ধর্ষণের দায়ে অভিযুক্ত ব্যক্তি সংক্রমণ থেকে সেরে উঠলেই তাকে গ্রেফতার করা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।