বগুড়ায় বন্ধুকে দিয়ে স্ত্রীকে ধর্ষণ, স্বামী গ্রেফতার

DSLR Cameras/ https://amzn.to/2P4hlHWCanon EOS Rebel T7 DSLR Camera with 18-55mm Lens | Built-in Wi-Fi|24.1 MP CMOS Sensor | |DIGIC 4+ Image Processor and Full HD Videos$359.99এই ক্যামেরা টি কিন্তে এখানে কিল্ক করুন

বগুড়ায় বন্ধুকে দিয়ে স্ত্রীকে ধর্ষণের পর গায়ে আগুন লাগিয়ে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। রোববার দুপুর ১টার দিকে শহরের ঠনঠনিয়া থেকে স্বামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, বগুড়া শহরের চকফরিদ এলাকার খন্দকারপাড়ার ডেকোরেটর শ্রমিক মো: আলম মণ্ডলের মেয়ে সানিয়া আক্তার আইভির সাথে গাবতলী উপজেলার মালিয়ানডাঙ্গা গ্রামের রফিকুল ইসলামের বিয়ে হয়। রফিকুল-আইভি দম্পতির আট বছর বয়সী একটি ছেলে রয়েছে। বিয়ের পর থেকে তারা বগুড়া শহরের কলোনী চকলোকমান এলাকায় ভাড়া থাকতেন। সাংসারিক নানা সমস্যা নিয়ে তাদের মধ্যে প্রায়ই ঝগড়া হত। যৌতুকের টাকা চেয়ে মাঝে মাঝে মারপিটও করতো রফিকুল। এসব ঘটনায় ২০১৬ সালে নারী নির্যাতন আইনে একটি মামলা দায়ের করেছিলেন আইভি। ওই মামলা তুলে নেয়ার জন্য আইভিকে চাপ দিতে থাকেন রফিকুল। মামলা তুলে না নেয়ায় গত শনিবার দুপুরে রফিকুল ও তার এক বন্ধুকে ডেকে নিয়ে আসেন। তার সাহায্যে আইভিকে ঘরের মধ্যে হাত পা বেঁধে ফেলেন। এরপর বন্ধুকে দিয়ে ধর্ষণ করান। ধর্ষণের পর ব্লেড দিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে কেটে দেন। ওই ব্লেড দিয়েই তার মাথার চুল কেটে দিয়ে মারপিট করেন আইভিকে। নির্যাতনের পর ঘরের মধ্যে আগুন লাগিয়ে দিয়ে পালিয়ে যান তারা। আইভির কান্নাকাটির শুনে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে আগুন নেভান। তাকে উদ্ধার করে আশঙ্কাজনক অবস্থায় বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।

নির্যাতিত গৃহবধূর পিতা আলম মণ্ডল বাদী হয়ে শনিবার রাতে তার স্বামী রফিকুল ইসলাম ও অজ্ঞাত বন্ধুকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ রোববার দুপর ১টার দিকে বগুড়া শহরের ঠনঠনিয়া থেকে রফিকুলকে গ্রেফতার করে। তবে তার বন্ধু পলাতক রয়েছে। মামলার তথ্য নিশ্চিত করেছেন শাজাহানপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আমবার হোসেন।

তথ্য