কুমিল্লার লাকসামে সম্পত্তির বিরোধে কলেজছাত্র খুন

DSLR Cameras/ https://amzn.to/2P4hlHWCanon EOS Rebel T7 DSLR Camera with 18-55mm Lens | Built-in Wi-Fi|24.1 MP CMOS Sensor | |DIGIC 4+ Image Processor and Full HD Videos$359.99এই ক্যামেরা টি কিন্তে এখানে কিল্ক করুন

ডেস্ক রিপোর্ট, : কুমিল্লার লাকসামে সম্পত্তির বিরোধের জেরে এক কলেজছাত্রকে খুন করার অভিযোগ উঠেছে। কলেজছাত্র সায়েম হোসেন (২২) লাকসামের মুদাফরগঞ্জ উত্তর ইউপির নগরীপাড়া গ্রামের মৃত আবদুল কাদিরের ছেলে।নিহত সায়েমের বোনের জামাই শরিয়ত উল্লা বাপ্পি জানান, সায়েমরা নগরীপাড়া গ্রামে একটি বাড়িতে মা ও ছোট ভাইকে নিয়ে বসবাস করতেন। সেই চাঁদপুরে একটি কলেজে ইংরেজি বিষয় নিয়ে অনার্স ৩য় বর্ষে লেখাপড়া করতেন। গত শুক্রবার সম্পত্তি নিয়ে জসিম পাটোয়ারীর পরিবারের সাথে কথা-কাটাকাটি হয়। পরদিন শনিবার দুপুরে প্রতিপক্ষ জসিম পাটোয়ারীর ছেলে লিংকন পাটোয়ারী লোক পাঠিয়ে সায়েমকে বাড়ির বাইরে ডাকে।

সায়েম না যেতে চাইলে তাকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে বাড়ির বাইরে আনে। নিজ বাড়ি থেকে কিছুদূর আসার পর লিংকন, লিয়ন, লিপনসহ ১৮/২০ জন যুবক সায়েমকে বিনা কারণেই মারধর করে। মারধর করে তাকে পাশের একটি ডোবায় ফেলে দিয়ে যায় তারা। গুরুতর আহত সায়েম চিৎকার দিতে থাকে। সায়েমের চিৎকারে তার স্বজন ও আশপাশের লোকজন ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছার আগেই লিংকন ও তার বাহিনী পালিয়ে যায়। লোকজন আহত সায়েমকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় হাসপাতাল পরে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত বুধবার রাতে কলেজছাত্র সায়েম মারা যায়।

সায়েমের নিকটাত্মীয় সূত্রে জানা যায়, টিউশনির টাকায় নিজের পড়ার খরচ ও পারিবারিক ব্যয় বহন করতেন কলেজছাত্র সায়েম। জমিনের সীমানা নিয়ে বিরোধের জের ধরেই এই হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। হত্যার ঘটনায় সায়েমের মা পারুল বেগম বাদী হয়ে ৬ জনের নাম উল্লেখ করে লাকসাম থানায় মামলা দায়ের করেন। এ বিষয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শাহেদুল ইসলাম শাহিন বলেন, মৃত্যুর খবর শুনে তাৎক্ষণিক তাদের বাড়িতে যাই। থানায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। লাকসাম থানার অফিসার ইনচার্জ নিজাম উদ্দিন এ ব্যাপারে জানান, ঘটনার পর গতকাল বৃহস্পতিবার ছয় জনের নামে মামলা দায়ের করা হয়েছে। আসামিরা পলাতক আছে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। আসামিদের ধরতে আমাদের অভিযান অব্যাহত আছে।