সাহেদের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা, ইমিগ্রেশন পুলিশকে চিঠি

DSLR Cameras/ https://amzn.to/2P4hlHWCanon EOS Rebel T7 DSLR Camera with 18-55mm Lens | Built-in Wi-Fi|24.1 MP CMOS Sensor | |DIGIC 4+ Image Processor and Full HD Videos$359.99এই ক্যামেরা টি কিন্তে এখানে কিল্ক করুন

ডেস্ক রিপোর্ট,

রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মো. সাহেদের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে ইমিগ্রেশন পুলিশকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার পুলিশ সদর দপ্তরের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ওই কর্মকর্তা জানান, সাহেদের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে ইমিগ্রেশন পুলিশকে চিঠি দিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) সংশ্লিষ্ট বিভাগ।

চিঠিতে বলা হয়, প্রতারণা মামলার আসামি সাহেদের বিরুদ্ধে মামলার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য, সাহেদ যেন দেশের বাইরে যেতে না পারেন, সে বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।

ইয়ারপোর্ট ইমিগ্রেশনের এএসপি মোতাজ্জেল হোসেন এনটিভি অনলাইনকে বলেন, ‘সাহেদ সংক্রান্ত একটি চিঠি আমরা পেয়েছি। তবে এটা ইন্টারনাল চিঠি। আর চিঠি না এলেও অপরাধী যাতে দেশ ত্যাগ করতে না পারে সেজন্য আমরা সব সময় সতর্ক থাকি। এটা আমাদের নিয়মিত কাজ।’

সংশ্লিষ্টরা জানান, রিজেন্ট হাসপাতালে করোনা চিকিৎসার নামে প্রতারণার অভিযোগে দায়ের করা মামলার প্রধান আসামি সাহেদ। এ অবস্থায় তাঁর দেশত্যাগের আশঙ্কা থেকে যায়। তাই তাঁকে দেশত্যাগ করতে না দিতে ইমিগ্রেশন পুলিশকে অবগত করা হয়েছে।

গত ৬ জুলাই রিজেন্ট হাসপাতালের উত্তরা ও মিরপুর শাখায় অভিযান চালায় র‌্যাব। অভিযানে ভুয়া করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট, করোনা চিকিৎসার নামে রোগীদের কাছ থেকে অর্থ আদায়সহ নানা অনিয়ম উঠে আসে। পরে রিজেন্টের প্রধান কার্যালয়, উত্তরা ও মিরপুর শাখা সিলগালা করে দেওয়া হয়।

গত ৭ জুলাই রাতে উত্তরা পশ্চিম থানায় ১৬ জনকে আসামি করে একটি মামলা করা হয়। এতে রিজেন্ট হাসপাতালের উত্তরা শাখা থেকে আটক আটজনকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। এ ছাড়া রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মো. সাহেদসহ আটজনকে পলাতক আসামি হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।