১৯৭১ সালে ভারতের কাছে আত্মসমর্পণের ছবি দিয়ে পাকিস্তানকে উপহাস তালেবান নেতার

0
40

আফগানিস্তানের জ্যেষ্ঠ তালেবান নেতা এবং দেশটির উপ-প্রধানমন্ত্রী আহমেদ ইয়াসির ১৯৭১ সালের যুদ্ধের পর ইসলামাবাদের ভারতের কাছে আত্মসমর্পণের একটি ছবি টুইটারে শেয়ার করে পাকিস্তানকে উপহাস করেছেন যা, বাংলাদেশ গঠনের দিকে পরিচালিত করেছিল।

সোমবার (২ জানুয়ারি) তেহরিক-ই-তালেবান পাকিস্তানের (টিটিপি) আস্তানাগুলোর বিরুদ্ধে সম্ভাব্য সামরিক অভিযানের ইঙ্গিত দেওয়ার পরে তালেবান নেতা পাকিস্তানকে এই কটূক্তি করে। সেই সঙ্গে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রানা সানাউল্লাহর বক্তব্যের উপযুক্ত প্রতিক্রিয়ার হুঁশিয়ারি দেয় তালেবানরা।

এই সময় ইয়াসির বলেন, “পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী! আফগানিস্তান, সিরিয়া এবং পাকিস্তান তুরস্ক নয় যে, সিরিয়ায় কুর্দিদের টার্গেট করবে। এই আফগানিস্তানে রয়েছে গর্বিত সাম্রাজ্যের কবরস্থান।  আমাদের উপর সামরিক হামলার কথা ভাববেন না, অন্যথায় ভারতের সাথে সামরিক চুক্তির লজ্জাজনক পুনরাবৃত্তি ঘটবে।”

তালেবান নেতার দ্বারা শেয়ার করা আইকনিক ছবিটি পূর্ব পাকিস্তানে (বর্তমানে বাংলাদেশ) পাকিস্তান সেনাবাহিনীর কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল আমির আবদুল্লাহ খান নিয়াজির নির্ণায়ক পরাজয় স্বীকার করে এবং জেনারেল অফিসার কমান্ডিং-ইন লেফটেন্যান্ট জেনারেল জগজিৎ সিং অরোরা’র উপস্থিতিতে ঢাকায় ‘আত্মসমর্পণ পত্রে’ স্বাক্ষর করছেন।

পরে দিনে, আফগানিস্তানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রক একটি বিবৃতি জারি করে পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রালয়ের দাবিকে অস্বীকার করে যে আফগানিস্তানের অভ্যন্তরে টিটিপির আস্তানা রয়েছে। একই সঙ্গে এটিকে “মিথ্যা এবং উস্কানিমূলক” বলে অভিহিত করা হয় বিবৃতিতে।

আফগানিস্তানের ইসলামিক এমিরেটস (আইইএ)-এর অন্তর্বর্তী প্রতিরক্ষা মন্ত্রী মোল্লা ইয়াকুবের জারি করা বিবৃতিতে বলেন, “অতীতে, এই ধরনের উস্কানিমূলক বক্তব্য ও দাবি দুই দেশের সম্পর্ককে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে।  আমরা পাকিস্তানকে আফগানিস্তানের ইসলামিক এমিরেটস (আইইএ) এর সাথে তার উদ্বেগগুলি ভাগ করে নেওয়ার এবং আলোচনার মাধ্যমে বিষয়টি সমাধান করার জন্য আহ্বান জানাই।”

প্রতিরক্ষা মন্ত্রী বিবৃতিতে আরও বলেন, “আফগানিস্তান মালিকানাহীন বা কোন উত্তরাধিকারীহীন নয় এবং বরাবরের মতো, তার দেশ এবং আঞ্চলিক নিরাপত্তা এবং তার স্বাধীনতা রক্ষা করতে প্রস্তুত।  আফগানিস্তানের দিকে যে কোনো আগ্রাসনের প্রচেষ্টার উপযুক্ত জবাব দেওয়া হবে।  যে কোনো আক্রমণের জবাব দিতে আমরা প্রস্তুত আছি।”

আর এই প্রসঙ্গ উঠে আসে পাকিস্তানি একটি নিউজ চ্যানেলের সাম্প্রতিক সাক্ষাত্কারে পাকিস্তানি মন্ত্রী সানাউল্লাহ বলেছিলেন যে, “কাবুল যদি তাদের নির্মূল না করে তবে ইসলামাবাদ আফগানিস্তানে টিটিপিকে লক্ষ্যবস্তু করতে পারে।”