শারীরিক চাহিদা প্রবল, দিনরাত জোর করে সঙ্গম করেন স্ত্রী! বিবাহবিচ্ছেদ চেয়ে আদালতে যুবক

শারীরিক চাহিদা প্রবল, দিনরাত জোর করে সঙ্গম করেন স্ত্রী! বিবাহবিচ্ছেদ চেয়ে আদালতে যুবক - প্রতীকী ছবি

স্ত্রীর শারীরিক চাহিদা এতই প্রবল যে, তার সঙ্গে তাল মেলানো সম্ভব না, তা সত্ত্বেও জোর করে সঙ্গমে বাধ্য করছিলেন স্ত্রী, অভিযোগ যুবকের।

 

স্ত্রীর শারীরিক চাহিদা প্রবল। দিন নেই, রাত নেই বাধ্য করেন সঙ্গমে। শেষ পর্যন্ত সহ্য করতে না পেরে বিবাহবিচ্ছেদ চেয়ে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন মুম্বইয়ের এক যুবক। শুনানিতে স্ত্রী হাজির না হওয়ায় ওই ব্যক্তিকে বিবাহবিচ্ছেদের অনুমতি দিল আদালত।

নিজের পিটিশনে ওই যুবক অভিযোগ করেছিলেন, ২০১২ সালে বিবাহের পর থেকেই তিনি স্ত্রীর ‘অতিরিক্ত অতৃপ্ত যৌন কামনার শিকার’। এমনকি, স্ত্রী মদ ও অন্যান্য পানীয়ের সঙ্গে যৌন উদ্দীপনাবর্ধক ওষুধও তাঁকে খাইয়ে দিতেন বলে অভিযোগ জানিয়েছিলেন ওই যুবক। বিভিন্ন ‘অস্বাভাবিক যৌন কর্মকাণ্ডেও’ স্ত্রী তাঁকে জোর করে লিপ্ত করতেন বলে আদালতে জানিয়েছিলেন তিনি।

যুবকের আরও অভিযোগ ছিল, তিনি মানা করলে ওই মহিলা অন্য কারও সঙ্গে যৌনতায় লিপ্ত হবেন বলে হুমকি দিতেন। স্ত্রীর যৌনমিলনের ইচ্ছা এতই তীব্র ছিল যে, পেটের গণ্ডগোলে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পরেও নাকি তিনি ওই যুবককে যৌনমিলনে বাধ্য করেন। স্ত্রী শুনানিতে হাজির না হওয়ায়, যুবককে বিবাহবিচ্ছেদের অনুমতি দিয়েছে মুম্বইয়ের একটি আদালত। বিচারক জানান, যেহেতু ওই মহিলা কোর্টে হাজির হননি, তাই পিটিশন দাখিলকারীর অভিযোগের কোনও প্রত্যুত্তর পাওয়া যায়নি। আর তাই আদালতের সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির অভিযোগ মেনে নিয়ে বিবাহবিচ্ছেদের অনুমতি দেওয়া ছাড়া কোনও উপায় নেই।