মাংস কিনতে গিয়ে পুলিশের হাতে গ্রেফতার ভুয়া সেনা সদস্য

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় সেনাসদস্য ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরিচয়ে প্রতারণার অভিযোগে আফজাল মিনহাজ সংগ্রাম (৪৮) নামে এক প্রতারককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রোববার (২৮ জুন) দুপুরে সদর উপজেলার ফতুল্লা থানার পাগলা বাজার এলাকায় তাকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা। এসময় পুলিশ তার কাছ থেকে একটি ভুয়া আইডি কার্ড ও লাঠি জব্দ করে।

গ্রেফতারকৃত আফজাল নাটোর জেলা চন্দিপুর এলাকার এরশাদ আলীর ছেলে। তিনি দেশের বিভিন্ন এলাকায় সেনা সদস্য বা প্রতিরক্ষা মন্ত্রনালয়ের পরিচয় দিয়ে প্রতারণা করে বেড়ায় বলে জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে।

অভিযোগকারী পাগলা বাজারের মাংস ব্যবসায়ী হারুন অর রশিদ বলেন, প্রতারক আফজাল বাজারে ঢুকেই নিজেকে সেনাবাহিনীর সদস্য পরিচয় দিয়ে সামাজিক দূরত্ব না মানায় সকলকে মারপিট শুরু করে। পরে আমার দোকানে এসে ৬৫ কেজি মাংসের অর্ডার দেয়। মাংসের দর কেজিপ্রতি ৫২০ টাকা হলেও মেমোতে ৬৫০ টাকা লিখতে বলে। এতে আমি আপত্তি জানালে সে সিএনজিতে মাংস তুলে ব্যাংকের এটিএম বুথ থেকে টাকা তুলে দিবে বলে জানায়। এসময় তার কাজ ও আচরণ সন্দেহজনক মনে হলে বাজার সমিতির লোকজন তাকে আটক করে। পরে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশকে ফোন করলে পুলিশ ভূয়া সেনাবাহিনীর সদস্য পরিচয়দানকারী প্রতারক আফজালকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ফতুল্লা মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শাহাদাত হোসেন জানান, আফজালের বিরুদ্ধে এর আগেও প্রতারণার নানা অভিযোগ রয়েছে। সে এর পূর্বেও বিভিন্ন এলাকার গরুর গোস্তের দোকানদারকে বোকা বানিয়ে মাংস নিয়ে কেটে পরতো। ফতুল্লার শিবুমার্কেট এলাকাতেও এমন একটি ঘটনা ঘটিয়ে ৩০ কেজি মাংস নিয়ে যায়। মূলত নিজেকে সেনাবাহিনীর সদস্য বা প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সদস্য পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন প্রতারণা করে। তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানান থানা পুলিশের এই কর্মকর্তা।