কুমিল্লায় ঘরের ভিতরে ডুকে যুবতীকে গণধর্ষনের পর হত্যা

ছবি : সংগৃহীত

কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার জোড্ডা পশ্চিম ইউপিতে রাবেয়া আক্তার (২০) নামে এক যুবতীকে গনধর্ষনের পর খুন করা হয়েছে।

রোববার (২৮ জুন) সকাল ১১ টার দিকে উপজেলার মান্দ্রা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। বিকেলে মরদেহ উদ্ধার করে থানা পুলিশ।

নিহত রাবেয়া আক্তার বিপুলা ওই গ্রামের আলী মিয়ার মেয়ে।

নিহতের বৃদ্ধা নানী জমিলা খাতুন বলেন, রোববার সকালে তার মেয়ে জাহানারা বেগম মাদ্রা বাজার যায়, এ সময় দুই যুবক ঘরে ডুকে আর মাঝ বয়সী ব্যাক্তি ঘরের দরজার সামনে দাড়িয়ে থাকে আমি মনে করেছি ব্যাংকের লোকজন আসছে।

নিহতের মা জাহানারা বেগম বলেন, ১১ টার দিকে আমি মান্দ্রা বাজার থেকে আসি আমার মাকে মেয়ের কথা জিজ্ঞেস করলে বলে তিনজন লোক আসছে তাদের সাথে কথা বলতেছে আমি ঘরে গিয়ে দেখি আমার মেয়ের নিথর দেহ মাটিতে পড়ে আছে। ওই গ্রামের আবুল কালামের রিপন ও তার ভাই লিটন সাথে তাদের বিরোধ চলছে। তার বিভিন্ন সময় তার মেয়েকে হত্যা করার হুমকিও দিয়ে আসছেন। এ ঘটনা তারা করতে পারে বলে তিনি অভিযোগ করে বলেন।

এঘটনায় এএসপি চৌদ্দগ্রাম সার্কেল সাইফুল ইসলাম সাইফ, সিআইডি, পিপিআইর পৃথক দল ঘটনাস্হল পরিদর্শন করেন।

নাঙ্গলকোট থানার ওসি মোঃ বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ঘটনার খবর পেয়ে রোববার বিকেলে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে ধর্ষনের পর হত্যা করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসার পর বিস্তারিত জানা যাবে।