ভোটারদের উদ্দেশে তাবিথ বলেছেন, পূজার ক্ষোভ ভোটে প্রকাশ করবেন:

ডেস্ক রিপোর্টঃ
সরস্বতী পূজার দিনে ভোটের তারিখ দিয়ে সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের বিএনপির মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল। হিন্দু সম্প্রদায়কে ওইদিন ধানের শীষে ভোট দিয়ে ক্ষোভ প্রশমিত করার আহ্বানও জানান তিনি।

হিন্দুধর্মাবলম্বী ভোটারদের উদ্দেশে তাবিথ বলেছেন, ৩০ জানুয়ারি সরস্বতী পূজার দিনে নির্বাচন হওয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত হিন্দু, হিন্দুধর্মাবলম্বীরা মনের ক্ষোভ ভোটে প্রকাশ করবেন।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর পশ্চিম তেজতুরিবাজার এলাকায় গণসংযোগকালে এ সব কথা বলেন তাবিথ আউয়াল।

এর আগে বেলা ১১টায় বসুন্ধরা সিটি মার্কেটের সামনে থেকে দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে সপ্তম দিনের প্রচার শুরু করেন তিনি।

আসন্ন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহারের সিদ্ধান্ত থেকে নির্বাচন কমিশনকে সরে আসার আহ্বান জানিয়ে তাবিথ বলেন, আমরা প্রযুক্তিবিরোধী নই, কিন্তু ভোট দেয়ার ক্ষেত্রে এ প্রযুক্তি ব্যবহার নিয়ে আমাদের আশঙ্কা ও আপত্তি রয়েছে। তাছাড়া ইভিএম ব্যবহারে ভোটাররা এখনও প্রস্তুত নয়। ইভিএমের সফটওয়্যার ও এর ব্যবহারের নানা বিষয় নিয়ে আমরা ইসির কাছে কিছু প্রশ্নের উত্তর জানতে চেয়েছি কিন্তু এখনও তারা এ বিষয়ে কিছুই জানাননি। নির্বাচন কমিশনকে বলব, দেশের বেশিরভাগ রাজনৈতিক দল ভোটারদের ইচ্ছার কথা বিবেচনায় এনে ইভিএম ব্যবহারের সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসুন।

তাবিথ বলেন, বিএনপির গণজোয়ার দেখে সরকারি দলের প্রার্থীরা ভয় পেয়ে উল্টো বিএনপির প্রার্থীদের ভয় দেখানোর চেষ্টা করছে। আমাদের ভয় দেখানোর চেষ্টা না করে ভোটারদের কাছে যান, ভোট চান। তিনি বলেন, নির্বাচনী পরিবেশ সকালে এক রকম আর বিকালে আরেক রূপ ধারণ করে। ভয়-ভীতি উপেক্ষা করে সবাইকে ভোটকেন্দ্রে যাওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

প্রচার শুরুর আগে বসুন্ধরা সিটির সামনে এক ব্যতিক্রমী প্রতিবাদের আয়োজন করা হয়। চারুকলার শিক্ষার্থীরা সেখানে বর্তমান সরকারের নানা কর্মকাণ্ডের বিরোধিতার চিত্র প্রতীকীভাবে তুলে ধরেন।

এরপর সেখান থেকে পুরনো আহসানউল্লাহ ইউনিভার্সিটি, আবদুল আলিম কমিউনিটি সেন্টারের গলিতে প্রচার চালান তাবিথ।

দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তাবিথ ফার্মগেটের গ্রীন সুপার মার্কেটের সামনে আসেন। এখানে বিভিন্ন ব্যবসায়ী ও পথচারীদের সঙ্গে কুশল বিনিময় ও ধানের শীষে ভোট চান তিনি। পশ্চিম তেজতুরি বাজার, আনন্দ সিনেমা হল, তেজগাঁ কলেজ, ইন্ধিরা রোড, পূর্ব রাজাবাজার, পান্থপথ, স্কয়ার হাসপাতাল, খামারবাড়ি, খেজুর বাগান, আগারগাঁও পাকা মার্কেট, শেরেবাংলানগর সরকারি উচ্চবিদ্যালয়, বাংলাদেশে বেতারের সামনে, দক্ষিণ পীরেরবাগ, ৬০ ফিটের আমতলা, বিএনপি বাজার এলাকায় গণসংযোগ করেন তিনি। এ সময় বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের কাছে ভোট চান।

বিকাল ৩টায় রোকেয়া স্মরণি থেকে ফের প্রচার শুরু করেন তাবিথ। এরপর তালতলা স্টাফ কোয়ার্টার, পানির ট্যাংকির মোড়, শ্যামলীর ১ ও ২নং রোডে প্রচার চালিয়ে গণসংযোগ শেষ করেন তিনি।

এ সময় সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তাবিথ বলেন, গণসংযোগে জনগণের ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি। ভোটাররাও ধানের শীষে ভোট দিয়ে তাদের ভাগ্য পরিবর্তন করতে চায়। আমিও প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি, যে সব পার্ক, খেলার মাঠ দখল হয়ে গেছে সেগুলো উদ্ধার করব। মশার কারণে ডেঙ্গু হচ্ছে। এর বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গণসংযোগকালে তাবিথের সঙ্গে এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আতাউর রহমান ঢালী, বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, নির্বাহী কমিটির সদস্য নাজিম উদ্দিন আলম, নিপুণ রায় চৌধুরী, ঢাকা মহানগর নেতা বজলুল বাসিদ আঞ্জু, যুবদলের সভাপতি সাইফুল আলম নীরব, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদিকা সুলতানা আহমেদ, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু, সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদির ভূঁইয়া জুয়েল, মোস্তাফিজুর রহমান, গোলাম সরোয়ার, কমিশনার প্রার্থী আনোয়ারুজ্জামান আনোয়ার, যুবদল নেতা এসএম জাহাঙ্গীর হোসেনসহ বিএনপি ও তার অঙ্গসহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

শুক্রবার সকাল ১০টায় মোহাম্মদপুর বাসস্টান্ড থেকে গণসংযোগ শুরু করবেন তাবিথ। ২৯ থেকে ৩৩নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকায় দিনব্যাপী প্রচার চালাবেন তিনি।