রাতারাতি দশ হাজার সেনা মোতায়েন, কাশ্মীর ছাড়ার হিড়িক পর্যটকদের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ,

কাম্মীর উপত্যকার নিয়ন্ত্রণ আরও আঁটোসাঁটো করল ভারত। সারা দেশ থেকে অতিরিক্ত ১০ হাজার সেনা-জওয়ানকে মোতায়েন করা হল সেখানে। স¤প্রতি ২ দিনের কাশ্মীর সফরে যান জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল। সেই সফর থেকে ফেরার পরই কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্ত। এত বিশাল সংখ্যক বাহিনী মোতায়েন এর আগে বালাকোট এয়ার স্ট্রাইকের সময় দেখেছিল উপত্যকা। খবর এনডিটিভি।
দ্বিতীয় বারের জন্য ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা হওয়ার পর অজিত ডোভাল দু’দিনের সফরে জম্মু-কাশ্মীর গিয়েছিলেন। স¤প্রতি তিনি সেখান থেকে ফিরেছেন। তার পরই শুক্রবার রাতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কাশ্মীরে তড়িঘড়ি ১০০ কোম্পানি বাহিনী মোতায়েনের অর্ডার দেয়। এই ১০০ কোম্পানি বাহিনীর মধ্যে সিআরপিএফ, বিএসএফ, সশস্ত্র সীমা বল এবং ইন্দো-তিব্বত সীমান্ত পুলিশ বাহিনীও রয়েছে। আচমকা এত বাহিনী কাশ্মীরে মোতায়েন করা হল কেন? মন্ত্রণালয়ের একটি স‚ত্রে জানানো হয়েছে, নেহাতই কাশ্মীরের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে এবং অনুপ্রবেশ রুখতে এই ব্যবস্থা।

দ্ইু দিনের সফরে স¤প্রতি কাশ্মীর উপত্যকায় গিয়ে সেখানকার উচ্চপদস্থ সেনা এবং পুলিশের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন ডোভাল। রাষ্ট্রপতি শাসনের অধীনে কাশ্মীরের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে তাদের সঙ্গে দীর্ঘ বৈঠক হয়। সেই বৈঠকের পরেই এই সিদ্ধান্ত বলে জানাচ্ছে এনডিটিভি। জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের ডিজি দিলবাগ সিংহ যেমন বলেন, ‘উত্তর কাশ্মীরে মোতায়েন করা বাহিনীর সংখ্যা কম ছিল। নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে আমাদের আরও বাহিনীর প্রয়োজন। প্রয়োজনের কথা জানিয়েওছিলাম।’ অমরনাথ যাত্রা উপলক্ষে আগে থেকেই জম্মু-কাশ্মীরে অতিরিক্ত ৪০ হাজার সেনা মোতায়েন করেছিল ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।