চকবাজারের অগ্নিকাণ্ড তদন্তে দুটি কমিটি

পুরান ঢাকার চকবাজারের চুড়িহাট্টায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড তদন্তে শিল্প মন্ত্রণালয় একটি এবং ফায়ার সার্ভিস আরেকটি কমিটি গঠন করেছে।

শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. মফিজুল হককে প্রধান করে বৃহস্পতিবার ১২ সদস্যের কমিটি করে মন্ত্রণালয়। কমিটিকে পাঁচ দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স তিন সদস্যের কমিটি করেছে।

বুধবার রাতে চুড়িহাট্টা শাহী মসজিদের পাশের অন্তত পাঁচটি ভবনে আগুন লাগে; এতে নিহত হয়েছে অর্ধ শতাধিক।

পাইকারি পণ্যের ওই বাজারে ওই ভবনগুলোর অধিকাংশ দোকানে প্লাস্টিক ও পারফিউমের গুদাম ছিল। দাহ্য পদার্থ থাকায় দ্রুত আগুন ছড়িয়ে ক্ষয়ক্ষতি বেশি হয় বলে ফায়ার সার্ভিস জানিয়েছে।
কোত্থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়, তা এখনও স্পষ্ট হওয়া যায়নি।

শিল্প মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ তথ্য কর্মকর্তা আবদুল জলিল বলেন, “তদন্ত কমিটিকে দুর্ঘটনার কারণ ও প্রাথমিক ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণ করে অগ্নি দুর্ঘটনা পুনরাবৃত্তিরোধে সুপারিশ করতে বলা হয়েছে।”

তদন্ত কমিটির সদস্য সচিব করা হয়েছে বিসিকের পরিচালক (প্রকল্প) মো. আব্দুল মান্ননকে।

কমিটিতে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তর, কল-কারখানা অধিদপ্তর, বিস্ফোরক অধিদপ্তর, ঢাকা মহানগর পুলিশ এবং ঢাকা জেলা প্রশাসকের একজন করে প্রতিনিধি, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কাউন্সিলর, বাংলাদেশ কেমিক্যাল অ্যান্ড পারফিউমারি মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ এসিড মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশন এবং বাংলাদেশ পেইন্টস্, ডাইজ অ্যান্ড কেমিক্যাল মার্চেন্টস্ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক এবং বাংলাদেশ সোসাইটি অব কেমিক্যাল সায়েন্টিস্টের সাধারণ সম্পাদক কমিটিতে সদস্য হিসেবে অন্তর্ভুক্ত রয়েছেন।

ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক (অপারেশন্স অ্যান্ড মেইনটেন্যান্স) মেজর এ কে এম শাকিল নেওয়াজ ঘটনাস্থলেই তার বাহিনীর কমিটি গঠনের কথা জানান।
ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক (অপারেশন্স) দিলিপ কুমার ঘোষকে প্রধান করে গঠিত তিন সদস্যের এ কমিটিতে সদস্য করা হয়েছে সংস্থাটির সহকারী পরিচালক (এডি) সালাহ উদ্দিন ও উপ-সহকারী পরিচালক (ডিএডি) আব্দুল হালিমকে।

আগামী ৭ দিনের মধ্যে কমিটিকে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে বলে জানিয়েছেন শাকিল নেওয়াজ।

উদ্ধারকাজ তদারকে থাকা ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরশেনের মেয়র সাঈদ খোকন সাংবাদিকদের বলেন, দ্রুত সময়ের মধ্যে এ তদন্ত কমিটি প্রতিবেদন প্রদান করবেন। তদন্ত রিপোর্ট পাওয়া সাপেক্ষে দোষি ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

একই সাথে ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তা করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা রয়েছে বলে জানান মেয়র।