সব প্রার্থীর অভিযোগ গুরুত্বের সঙ্গে আমলে নিতে হবে: সিইসি

cec nurul huda

সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে অপরাধ দমনে গঠিত ইলেকটোরাল ইনকোয়ারি কমিটির বিচারকদেরকে সব প্রার্থীর অভিযোগ গুরুত্বের সঙ্গে আমলে নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা।

তিনি বলেন, ‘ইতোমধ্যে নির্বাচন আচরণবিধি ভঙ্গসহ নানা অপরাধের প্রতিকার না পাওয়ার অভিযোগ আসা শুরু করেছে নির্বাচন কমিশনে। মাঠ পর্যায়ে তদন্ত কমিটি নীরব রয়েছে। তদন্ত কমিটির বিচারকদের নির্বাচনি মাঠে সম্পূর্ণ শক্তি প্রয়োগ করতে হবে। যে কোনও প্রার্থীর অভিযোগ আমলে নিয়ে ব্যবস্থা নিতে হবে।’

বুধবার নির্বাচন ভবনে নির্বাচনি তদন্ত কমিটির বিচারকদের ব্রিফিং অনুষ্ঠানে তিনি এ নির্দেশনা দেন।

ইলেকটোরাল কমিটির উদ্দেশ্যে সিইসি বলেন, ‘এপর্যন্ত আপনারা ‘ভিসিবল’ হননি। আপনারা যখন ভিসিবল হবেন, সক্রিয়ভাবে কাজ করবেন, তখন সবাই আপনাদের সম্পর্কে সবাই জানবে। তখন আর নির্বাচন কমিশনে মানুষ অভিযোগ নিয়ে আসবে না। আমরা প্রতিদিন শত শত অভিযোগ পাই। আমরা সেগুলো আপনাদের কাছে পাঠিয়ে দেবো। কিন্তু প্রয়োজন ছিল এগুলো সরাসরি আপনাদের কাছে যাবে। কিন্তু তা যায়নি।’

কমিশনার মাহবুব তালুকদার বলেন, ‘অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনে একপক্ষের আধিপত্য বিস্তার কার্যকর হয় না। নির্বাচন আইনানুগ না হলে সে নির্বাচন কালো নির্বাচন, কমিশন একটি সাদা স্বচ্ছ নির্বাচন করতে চায়।’

কবিতা খানম বলেন, ‘আইনের কোনও ব্যত্যয় যেন না ঘটে, কারও প্রতি বৈষম্যমূলক আচরণ করা যাবে না।’

শাহাদাত হোসেন বলেন, ‘সাহসিকতার সঙ্গে আইনের যথাযথ প্রয়োগ করতে হবে। এক্ষেত্রে ভয়ভীতি ও চাপ উপেক্ষা করতে হবে।’